ফেসবুক হ্যাকিং থেকে বাচার উপায় ( Ways to Protect Facebook hacking )

ফেসবুক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এর অন্যতম একটি জনপ্রিয় মাধ্যম । যার ইউজার রয়েছে পুরো পৃথিবী ব্যাপী । ফেসবুকের প্রতিটি ইউজাররা বলতে গেলে ফেসবুক ছাড়া অন্ধ । ফেসবুক ছাড়া যেন এক মুহূর্ত থাকা যায় না । বর্তমান যুগে তো মনে হয় মানুষ মানুষের থেকেও ফেসবুককেই বেশি ভালোবাসি । নিজের জীবনের প্রতিটি মুহূর্ত যেন ফেসবুকে না তুলে ধরলে মানুষের পেটের ভাত হজম হয় না । আর এ কারণেই তো তারা নানা ভাবে বিপদের সম্মুখীন হচ্ছে । ফেসবুকের জনপ্রিয়তা বাড়ার পাশাপাশি বেড়ে গেছে ফেসবুক হ্যাকিংয়ের ঘটনা । ফেসবুক হ্যাকিং শব্দটির সাথে আমরা কমবেশি সকলেই পরিচিত । চারদিকে এত ফেসবুক হ্যাকিংয়ের ঘটনা ঘটার সত্বেও আজও আমরা সাবধানে । মানুষ জিনিস দেখে কিভাবে আসলে আমি জানিনা । ফেসবুক যে সারাক্ষণ চালাতে হবে এটা যে কোন সংবিধানে লিপিবদ্ধ আছে তা আমার জানা নেই । ফেসবুকে হ্যাক করার তেমন কিছু নেই যদি না আমরা আমাদের পার্সোনাল কিছু ফেসবুকে শেয়ার না করি । ধরুন আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হয়েছে । কিন্তু তাতে কি আপনি তো নতুন একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে পারবে । কিন্তু যারা ফেসবুকে নিজের পার্সোনাল কিছু শেয়ার করেছেন তাদের জন্য এটি অত্যন্ত চিন্তার ব্যাপার । হঠাৎ বলতে গেলে তারা এক ধরনের মহা বিপদে পড়ে যাবে । আর যাদের কোনো পার্সোনাল তথ্য ফেসবুকে থাকে না বা শেয়ার করেনা তাদের এ বিষয়টিতে কোনো মাথাব্যথা নেই । আর না থাকারই কথা । যাক এসব কথা আর গভীরে আমি যাব না আপনার ফেসবুক একাউন্ট কিভাবে সুরক্ষিত রাখতে পারবেন অর্থাৎ আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে যেন না হ্যাক হয় এজন্য আপনি কি কি করতে পারেন তা আজকে আমি আপনাদের জানানোর চেষ্টা করব ।

 

ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক থেকে বাঁচার উপায়

 

✅পাসওয়ার্ড – পাসওয়ার্ড ফেসবুক ইউজারদের জন্য সুরক্ষা কবজ হিসেবে কাজ করে । প্রত্যেকটি ফেসবুক ইউজারের কাছে পাসওয়ার্ডটি যেন নিজের প্রানের থেকে প্রিয় । নিজের প্রাণ দিয়ে দেওয়া যাবে কিন্তু তারপরও ফেসবুকের পাসওয়ার্ড দিয়ে যাবে না । আমাদের বাংলাদেশসহ পৃথিবীর নানা দেশে এই পাসওয়ার্ড কে ঘিরে নানা ধরনের ঘটনা রয়েছে । এ পাসওয়ার্ড না দেয়ার কারণে অনেক সময় ভালোবাসার সম্পর্ক ভেঙে যেতে দেখা গেছে । যা সত্যি হাস্যকর এবং দুঃখজনক । সে যাই হোক ফেসবুক ইউজারদের অবশ্যই নিজের ফেসবুকের পাসওয়ার্ড টি সুরক্ষিত রাখা অত্যন্ত জরুরী । নিজের পাসওয়ার্ডটি বিশ্বস্ত মানুষ ছাড়া কারো সাথে শেয়ার করা উচিত নয় । এছাড়া শুধুমাত্র ফেসবুক ব্যতীত নিজের পাসওয়ার্ডটি অন্য কোথাও ইনপুট দেওয়া একেবারেই উচিত নয় । অনেকেই আছেন অন্যান্য পাসওয়ার্ড এর সাথে ফেসবুকের পাসওয়ার্ড এর মিল রাখেন । আবার আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন পাসওয়ার্ড খুব সহজ ইউজ করি । প্রত্যেক ফেসবুক ইউজারদের জন্য পাসওয়ার্ডটা একটু ডিফিকাল্ট করা উচিত । যাতে করে সহজেই হ্যাকাররা ফেসবুকের পাসওয়ার্ড হ্যাক না করতে পারে ।

 

✅লগইন ইনফো – ফেসবুকের লগইন ইনফরমেশন বলতে সাধারণত আমরা ইউজারনেম এবং পাসওয়ার্ডকে বুঝে থাকি । আর এই লগইন ইনফরমেশন দিয়ে আমরা ফেসবুকে লগইন করে থাকি । তাই লগইন ইনফো ফেসবুক ইউজারদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ । ফেসবুক লগইন ইনফো ফেসবুক ছাড়া অন্য কোথাও প্রবেশ করাবেন না । এমন অনেক ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপস রয়েছে যেখানে আমাদের ফেসবুক লগইন এর মাধ্যমে প্রবেশ করতে হয় । এই সকল অ্যাপস কিংবা ওয়েবসাইটে কিছু রয়েছে সুরক্ষিত এবং কিছু রয়েছে অসুরক্ষিত । আমরা যখন লগইন ইনফো দিয়ে কোন ওয়েবসাইট কিংবা অ্যাপসে প্রবেশ করব তখন অবশ্যই আমাদের মাথায় রাখতে হবে আমরা যেখানে লগইন প্রবেশ করছি সেই অ্যাপস কিংবা ওয়েবসাইট আপনার জন্য সুরক্ষিত কিনা । আপনি যতক্ষণ না পর্যন্ত তা নিশ্চিত হতে পারছেন ততক্ষণ পর্যন্ত আপনার ফেসবুক লগইন ইনফো কখনোই সেখানে শেয়ার করবেন না । আর ফেসবুক ব্যবহার শেষে অবশ্যই লগআউট করতে ভুলবেন না । আপনার ফেসবুক একাউন্টটি যদি লগ আউট না করা থাকে তাহলে হ্যাকারদের জন্য সেই অ্যাকাউন্টটি হ্যাক করা খুব সহজ হয়ে যায় । তাই অবশ্যই ফেসবুক ব্যবহার পর ফেসবুক লগআউট ঠিকঠাক হয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করুন ।

 

✅বন্ধু নির্বাচনে অবশ্যই সতর্ক হোন – আমরা যেমন রিয়েল লাইফে বন্ধু নির্বাচনে সতর্ক হই ঠিক তেমনি ফেসবুক বন্ধু নির্বাচনে অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত । কথায় আছে সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস অসৎ সঙ্গে সর্বনাশ । আপনি যদি ফেসবুকে কোনভাবে ভুল কিংবা খারাপ বন্ধু নির্বাচন করেন তাহলে আপনার বিপদের সম্ভাবনা বেড়ে যাবে । ফেইসবুক অনেক সময় আমাদের নানা ধরনের বন্ধু সাজেশন করে । আর এই সাজেশন এর মধ্যে অনেকেই আমাদের পরিচিত থাকে অনেকেই অপরিচিত থাকে । আর অপরিচিত কোনো বন্ধু ফেসবুকে সংযুক্ত করবেন না । যাকে ফেসবুকে সংযুক্ত করছেন তাকে আপনি পার্সোনালি খুব ভালোভাবে চিনেন কিনা তা নিশ্চিত করুন । অপরিচিত এমন অনেক ফ্রেন্ড রয়েছে যার আপনাকে বিব্রতকর অনেক পোস্টে ট্যাগ করবে এবং আপনার দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করবে । যা মূলত আপনাকে বিপদে ফেলার প্রাথমিক একটি ধাপ । কোনোভাবেই এই সকল ফাঁদে পা দেবেন না তাই বন্ধু নির্বাচনে সতর্কতা অবলম্বন করুন ।

 

✅ভুয়া সফটওয়্যার কিংবা ব্রাউজার এড়িয়ে চলুন – আমরা মোবাইল ফোনে নানা ধরনের সফটওয়্যার ইউজ । মোবাইল ফোন ইউজার দের নানা ধরনের সফটওয়্যার আমাদের ইউজার এক্সপেরিয়েন্স অনেকাংশে বাড়িয়ে তোলে । আমরা আমাদের মোবাইলে যে সকল সফটওয়্যার ইউজ করে তা বন্ধের মোবাইলকে সুরক্ষিত রাখছে কিনা সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে । অবশ্যই সফটওয়ারগুলো সার্টিফাইড কিনা তা আমাদের নিশ্চিত করতে হবে । এমনকি আপনি যেখান থেকে সফটওয়্যার ইন্সটল কিংবা ডাউনলোড করছেন তা সুরক্ষিত কিনা তা নিশ্চিত করুন । ভুয়া সফটওয়্যার আপনার মোবাইল ফোনের উপর নজরদারি করছে কিনা তা দেখুন । এমন অনেক সফটওয়্যার রয়েছে যা আপনার মোবাইলে উপর নজরদারি করছে আপনি কি করছেন না করছেন কি ইনপুট দিচ্ছেন এমনকি আপনার মোবাইলের যাবতীয় অ্যাকসেস নিয়ে থাকে । আপনাদের অবশ্যই সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে । এবার আসা যাক কম্পিউটারে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কথায় । ফেসবুক ব্যবহারকারীরা মূলত ফেসবুক ব্যবহারের জন্য নানা ধরনের ব্রাউজার ব্যবহার করে থাকেন । এর মধ্যে অন্যতম হলো গুগল ক্রোম ফায়ারফক্স অপেরা ইত্যাদি । এ সকল ব্রাউজারের প্রত্যেক দিতে নানাধরনের এক্সটেনশন ব্যবহারের সুবিধা থাকে । আবার আমরা যখন এই সকল ব্রাউজার দিয়ে কোন ওয়েবসাইট ব্রাউজ করি এমন অনেক ব্রাউজার আছে যারা অটোমেটিকেলি আপনার ব্রাউজারে এক্সটেনশন ইনস্টল করে দেবে যে আপনি বুঝতে পারবেন না । তাই আজেবাজে ওয়েবসাইট ব্রাউজ করা বন্ধ করে দিন । না হলে ম্যালওয়্যার জাতীয় কিছু এক্সটেনশন আপনার ব্রাউজার ইন্সটল হয়ে গেলে আপনি নানাদিক থেকে বিপদে পড়তে পারেন । ফেসবুকের পাশাপাশি আপনার কম্পিউটারের অ্যাক্সেস আপনি হারিয়ে ফেলতে পারেন ।

 

✅লিঙ্ক ক্লিকে সতর্ক হোন – মোবাইল কিংবা কম্পিউটারে যাদের প্রতিনিয়ত নানা ধরনের লিংকে ক্লিক করতে হয় । এদের মধ্যে আমরা অনেকেই জানিনা যে কোন লিংকে ক্লিক করছি লিংকটা আমাদের জন্য কতটা সুরক্ষিত । কোন লিঙ্কে ক্লিক করার আগে অবশ্যই আপনাকে লিঙ্কটি যাচাই করতে হবে না হলে আপনি বিপদে পড়ে যেতে পারেন । আমাদের ফোনে বিভিন্ন মোবাইল কোম্পানি নানা ধরনের লিংকে নানা ধরনের অফার প্রোভাইড করে । এর মধ্যে কিছু লিংক থাকে ফেইক আবার কিছু থাকে সুরক্ষিত । তাই বলে অফার লুফে নেওয়ার জন্য যে কোন লিংকে ক্লিক করে বসবেন না । আপনি যখন অসুরক্ষিত কোন লিংকে ক্লিক করেন তখন হ্যাকাররা আপনার মোবাইলের নানা ধরনের অ্যাক্সেস এবং ইনফরমেশন নেওয়ার চেষ্টা করে । তাই আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে সুরক্ষিত রাখার জন্য অবশ্যই উল্টোপাল্টা কোন লিংকে ক্লিক করবেন না ।

 

✅লগইন হিস্ট্রি চেক করুন – আপনি যখন ফেসবুকে লগইন করেন তা ফেসবুকের হিস্ট্রি তে জমা হয়ে থাকে । সেই হিস্ট্রিতে আপনি কখন কোথায় এবং কিভাবে ফেসবুকে লগইন করছেন তার ইনফরমেশন জমা থাকে । তাই নিয়মিত ফেসবুক লগইন হিস্ট্রি চেক করুন । অসুরক্ষিত কোন লগইন হিস্ট্রি চোখে পড়লে তা বাতিল করে দিন যেন সে জায়গা থেকে পরবর্তীতে আর আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগইন করতে না পারে । আপনি প্রতিদিন যদি ফেসবুকে লগইন করতে পারেন তাহলে আপনার উচিত হবে একবারের জন্য হলেও ফেসবুকে লগইন হিস্ট্রি চেক করা ।

 

✅টু স্টেপ ভেরিফিকেশন অন করুন – ফেসবুক সুরক্ষিত রাখতে চাইলে টু স্টেপ ভেরিফিকেশন এর কোন বিকল্প নেই । টু স্টেপ ভেরিফিকেশন ফেসবুক সুরক্ষা ক্ষেত্রে অত্যন্ত কার্যকরী একটি মাধ্যম । টু স্টেপ ভেরিফিকেশন এর মাধ্যমে আপনি আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে একেবারে সুরক্ষিত রাখতে পারেন । আপনি যখন টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন অন করবেন তখন ফেসবুক লগইন এর জন্য আপনাকে 4 ডিজিটের নির্দিষ্ট একটি কোড ইনপুট দিতে বলা হবে । যা আপনাকে এসএমএস এর মাধ্যমে ইন্সট্যান্টলি দেয়া হয়ে থাকে ফেসবুকের দারা । আর তাই যখনই কোন হ্যাকার আপনার একাউন্টে প্রবেশ করার চেষ্টা করবে তখনই আপনার মোবাইল ফোনে 4 ডিজিটের একটি কোড চলে আসবে । আর সেই কোড প্রবেশ করা না পর্যন্ত দিয়ে কেউ ফেসবুকে লগইন করতে পারবে না ।

 

✅একজন বিশ্বস্ত বন্ধু নির্বাচন – ধরুন আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি হ্যাক হয়ে গেছে । তাহলে আপনি তখন কি করবেন । তখন আপনি নিশ্চয়ই পাসওয়ার্ড রিসেট করার চেষ্টা করবেন । আর তাতে যদি আপনি ব্যর্থ হয়ে যান তাহলে আপনি নিশ্চয়ই আপনার ফেইসবুক একাউন্টের আশা ছেড়ে দেবেন । আপনি হতাশায় ভেঙ্গে পড়বেন । তবে ফেসবুকে এমন একটি অপশন রয়েছে এরকম পরিস্থিতিতে আপনাকে বাঁচানোর জন্য । সে অপশনটি হলো একজন বন্ধু নির্বাচন করা । যে বন্ধুটি আপনার ফেসবুক কে ফিরিয়ে আনতে সহায়তা করবে । আপনি চাইলেই সেই বন্ধুর মাধ্যমে আপনার ফেইসবুক একাউন্টটি রিকভার করতে পারবে । তবে এক্ষেত্রে আপনার বন্ধুটি অবশ্যই বিশ্বস্ত হতে হবে ।

 

আশা করি আমাদের আজকের এই ব্লগ পোস্ট থেকে আপনি আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে কিভাবে সুরক্ষিত করা যায় তা জানতে পেরেছেন । আমাদের এই ব্লগ পোষ্ট টি আপনার এতোটুকু উপকারে আসে তাহলে ব্লক পোষ্টটি অবশ্যই আপনার বন্ধুর সাথে শেয়ার করুন । আর অবশ্যই ফেসবুকে আপনার ব্যক্তিগত তথ্য শেয়ার করবেন না । না হলে আপনি যেকোন সময়ে বিপদে পড়তে পারেন । আমাদের আজকের এই ব্লগ পোস্টে আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *